Home / রহস্য / মন্ত্রীর জিজ্ঞাসা, সানাইটা আবার কে?

মন্ত্রীর জিজ্ঞাসা, সানাইটা আবার কে?

আলোচিত মডেল ও নবাগত চিত্রনায়িকা সানাই মাহবুব সুপ্রভা। সম্প্রতি আপত্তিকর কিছু ছবি ও ভিডিও দিয়ে সমালোচিত হন তিনি। সর্বশেষ সাইবার ক্রাইমের হেফাজতে লাইভে গিয়ে নতুন করে আলোচনায় আসেন তিনি। এদিকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন মডেল সানাই মাহবুব সুপ্রভা। গত শনিবার সকালে তার বাগদান হয়ে গেল। নিজেই বিয়ের তথ্য নিশ্চিত করেছিলেন তিনি। সেখানে বলেছিলেন তার স্বামী আওয়ামী লীগের একজন প্রভাবশালী নেতা। তিনি গেল মেয়াদে মহাজোট সরকারের মন্ত্রীও ছিলেন। সর্বশেষ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

সানাই জানিয়েছেন, তার পরিবারের সম্মতিতেই এই বিয়েতে মত দিয়েছেন তিনি। তার হবু স্বামী একজন ডিভোর্সি। তার সঙ্গে বয়সের পার্থক্য ২২ বছর। এই বিয়ের সেই খবর প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। সবাই রীতিমতো গোয়েন্দার ভূমিকায় কোমর বেঁধে নেমে পড়েছেন রহস্য উদঘাটন করতে। সানাইয়ের সঙ্গে বাগদান করা কে সেই সাবেক মন্ত্রী ও বর্তমান এমপি?

বিষয়টি নিয়ে মহাজোট সরকারের উল্লিখিত সেই সাবেক মন্ত্রীর সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ‘সানাইটা আবার কে? হয়তো কোনো প্রোগ্রামে দেখা হয়েছিল কিন্তু ওকে আমি চিনি না। ফেসবুকে শুধুই গুজব ছড়ানো হচ্ছে।’

অনেকেই অনেক নাম তুলে আনছেন। হিসাব মিলিয়ে দেখছেন সানাইয়ের সঙ্গে ২২ বছরের ব্যবধান হতে পারে এমন সাবেক মন্ত্রীটি কে? কেউ আবার খুঁজছেন ডিভোর্সি সাবেক মন্ত্রী। যিনি বর্তমানে কোনো মন্ত্রণালয় পাননি। এদিকে গত শনিবার রাত থেকে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে সানাইয়ের একটি ছবি। যেখানে তার সঙ্গে দেখা গেছে মহাজোট সরকারের সাবেক এক মন্ত্রীকে। সানাইয়ের দেওয়া তথ্যমতে তিনি সাবেক মন্ত্রী এবং বর্তমান এমপি। তাদের বয়সের ব্যবধান ২২ বছরের বেশি হলেও অনেকেই ইশারায় তাকেই সানাইয়ের হবু বর বলে দাবি করছেন।

তবে এই ছবিটি নিয়ে ভীষণ বিরক্ত ও বিব্রত সানাই। তিনি বললেন, ‘সাংবাদিকরা আমার বরের সম্পর্কে কিছু জানতে অনুরোধ করেছেন, তাই আমি কিছু তথ্য দিয়েছি। কিন্তু এরপর দেশের মানুষ সাবেক মন্ত্রী হিসেবে যাকে পাচ্ছে তাকেই আমার স্বামী হিসেবে দাবি করছে। এটা খুবই বিরক্তির এবং অন্যায়। যার কথা বলা হচ্ছে তিনি একজন বরেণ্য প্রবীণ রাজনীতিবিদ। তার সঙ্গে আমার তেমন পরিচয় নেই। একটি শো রুমের উদ্বোধনকালে প্রথম ও শেষ দেখা হয়। তিনি মুরব্বি মানুষ। তার সঙ্গে আমার ছবিটি নিয়ে বাজে বাজে কথা বলা হচ্ছে।

একজন সম্মানিত মানুষকে বিব্রত করা হচ্ছে। আমি ও আমার পরিবারও বিব্রত। সবাইকে অনুরোধ করব, এমনটা করবেন না।’ সানাই বলেন, ‘মানুষ মুখ ভরে শুধু মিডিয়ার মেয়েদের দোষ দিতে পারে। কিন্তু নিজেদের অনধিকার চর্চার প্রতি তাদের নিয়ন্ত্রণ নেই। একজন বিয়ে করছে, কাকে করছে সেটা প্রকাশ করা না করা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমি তো বলেছি যে, পারিবারিক অনুমতি পেলেই আমি বরের নাম ও পরিচয় সব বলব। এ নিয়ে এত বাড়াবাড়ির কিছু দেখি না।’ আর কোনো সাবেক মন্ত্রীকে নিয়ে ছবি ও গুজব না ছড়ানোর অনুরোধ জানিয়েছেন সানাই। সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন